ক্যাম্পাস

ডিএমসিবি’র পৃষ্টপোষকতায় জাবিতে চার দিনব্যাপী “ফিন্যান্স ফেস্টিভল”

জাবি প্রতিনিধিঃ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের আয়োজনে জাঁকজমকপূর্ণ ভাবে ঢাকা মার্কেন্টাইল কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিমিটেড (ডিএমসিবি) এর পৃষ্ঠপোষকতায় চার দিন ব্যাপী আয়োজিত হলো ফিন্যান্স ফেস্টিভাল-২০২২।

জাবির ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের প্রতিষ্ঠার পর প্রথমবারের মতো আয়োজিত ফেস্টিভলটি ৩১ আগস্ট থেকে শুরু হয়ে ৩ সেপ্টেম্বরে সমাপ্তি টানে।

ফেস্টিভলের প্রথম দিন (৩১ আগস্ট) সকালে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের ডিন নীলাঞ্জন কুমার সাহা, ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের সভাপতি মোহাম্মদ শওকত হোসেন, সহযোগী অধ্যাপক মোঃ ইউসুফ হারুন ও দেবাশীষ সাহা, প্রভাষক প্রদীপ চন্দ্র বিশ্বাস সহ আরো অনেকে ফেস্টিভলের উদ্বোধন করেন।

এর পর ব্যাবসায় শিক্ষা অনুষদে সারাদিন ব্যাপি আয়োজিত হয় মাইক্রোসফট এক্সেল, পাওয়ার পয়েন্ট ও দাবা খেলা প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্ব।

ফেস্টিভলের দ্বিতীয় দিন (১ নভেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের জহির রায়হান মিলনায়তনে সকাল ১০ টা থেকে বিকাল ৪ টা পর্যন্ত দেশের ২০ টি কোম্পানি নিয়ে অনুষ্ঠিত হয় চাকুরী মেলা। এই মেলায় চাকুরী প্রার্থীরা তাদের সিভি জমা দেওয়া ও কোম্পানির কার্যক্রম সম্পর্কে সরাসরি জানতে পেরেছে।

মেলায় সরেজমিনে দেখা গেছে, জাবি ও অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা উৎসবমূখর হয়ে বিভিন্ন কোম্পানিতে নিজের সিভি জমা দিচ্ছে ও কোম্পানির কার্যক্রম নিয়ে কোম্পানির প্রতিনিধিদের সাথে আলোচনা করছে।

এতে অংশগ্রহণকারী চাকুরিপ্রার্থী ম্যানেজমেন্ট বিভাগের শিক্ষার্থী আরিফ হোসেন বলেন, চাকুরী মেলা একটা কার্যকরী উদ্যোগ যেখান থেকে একই সাথে অনেক গুলো কোম্পানির কার্যক্রম সম্পর্কে জানতে পারা যায় ও নিজের সিভি জমা দেওয়া যায়, যা এক এক করে কোম্পানিগুলোতে গিয়ে জানা বা সিভি জমা দেওয়া কোনো ভাবেই সম্ভব না। তাই চাকুরী প্রার্থীদের জন্য এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

এ দিন বিকাল সাড়ে ৪ টা থেকে সন্ধ্যা ৭ টা পর্যন্ত গ্রামীন ডিস্ট্রিবিউশন লিমিটেড এর বিজনেস ডেভেলপমেন্ট সিনিয়র ম্যানেজার মোঃ ইমদাদুল ইসলামের সঞ্চালনায় বহুজাতিক কোম্পানি ও ব্যাংকিং কোম্পানি নিয়ে প্যানেল ডিসকাশনে আলোচনা করেন ব্যাংক এশিয়ার ক্রেডিট ইনচার্জ আব্দুল্লাহ আল মাসুদ, লঙ্কাবাংলা ফাইন্যান্সের ট্যালেন্ট একুইজেশন এন্ড ম্যানেজমেন্টের ভাইস প্রেসিডেন্ট ফারহাদ আলম ও লিডার্স ফোরাম বিডি’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি একেএম রোকনুজ্জাম খন্দকার ও পরবর্তীতে দক্ষতা উন্নয়ন মূলক সেশনে বক্তব্য রাখেন লেখক ও ইনস্টিটিউট অফ ট্রেনিং অ্যান্ড ম্যানেজমেন্টের কনসালটেন্ট মাশাহেদ হাসান সীমান্ত। সেখানে প্রায় তিনশতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন।

ফেস্টিভলের তৃতীয় দিনে বিভাগের শিক্ষক শিক্ষার্থীদের নিয়ে র‍্যালী আয়োজিত হয়। পরবর্তীতে অনুষ্ঠিত হয় মেয়েদের ক্রিকেট টুনার্মেন্ট, ছেলেদের ফুটবল ও বাস্কেটবল টুনার্মেন্ট।

ফেস্টিভলের চতুর্থ ও শেষ দিন সকালে সকল প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের নিয়ে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠিত হয়।

দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ক্যাফেটেরিয়ায় বিভাগের বর্তমান ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের নিয়ে মিলন মেলা আয়োজিত হয়।

এদিন সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সেলিম আল দীন মুক্তমঞ্চে আয়োজিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। উক্ত অনুষ্ঠানে বিভাগের শিক্ষার্থীরা কবিতা, গান, অভিনয় ও নৃত্য পরিবেশন করেন। সর্বশেষে হাজার দর্শকের উপস্থিতিতে দেশীয় ব্যান্ড দল আন্তঃনগর ও কার্নিভালের পরিবেশনায় পর্দা টানা হয় ফিন্যান্স ফেস্টিভল-২০২২ এর।

ফিন্যান্স ফেস্টিভল-২০২২ কে কেন্দ্র করে, এর কনভেনর সজীবুজ্জামান শান্ত (৪৭ ব্যাচ) বলেন, অনেকদিন ধরেই আমরা একটা বড় ইভেন্ট করার চেষ্টা করছিলাম। দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন ডিপার্টমেন্টে যে ধরনের ফেস্টিভল করা হয়। আমরা ফিন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগ থেকে আমাদের বিভাগের কার্যক্রমকে কেন্দ্র করে ফেস্টিভল করার চেষ্টা করেছি যার মাধ্যমে আমরা আমাদের কার্যক্রম গুলোকে তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। আমরা এটা নিয়ে খুবই আনন্দিত।

তিনি আরো বলেন, এইতো কিছুদিন আগে এই বিভাগের একযুগ পূর্তি হলো। ছোট্ট একটা বিভাগ ও তার সাথে জড়িত মানুষের সংখ্যা বাড়ছে এরই ধারাবাহিকতায় ছোট ছোট অনেক অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়েছে। এটাই ছিলো বিভাগের প্রথম এতো বড় অনুষ্ঠান। আমি আশা করি পরবর্তী প্রজন্ম এর ধারাবাহিকতা বজায় রাখবে ও নিজের বিভাগকে নিয়ে অন্যদের কাছে একটি দৃষ্টান্ত তৈরি করবে।

উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান পৃষ্ঠপোষকতা করেছে ঢাকা মার্কেন্টাইল কো-অপারেটিভ ব্যাংক লিমিটেড, সহযোগী পৃষ্ঠপোষক হিসেবে ছিলো এনআরবি ব্যাংক। ফুড এন্ড বেভারেজের পৃষ্ঠপোষকতা করেছে ওয়েল ফুড। এছাড়া নলেজ পার্টনার হিসেবে ছিলো বুকস অব বেঙ্গল, স্ট্রাটেজিক পার্টনার হিসেবে ছিলো পার্টেক্স এগ্রো, লার্নিং পার্টনার হিসেবে ছিলো ওস্তাদ, স্পোর্টস পার্টনার হিসেবে ছিলো জেএএফএফ এরিনা এন্ড লার্নিং একাডেমী, কফি পার্টনার হিসেবে ছিলো এএমএ অথেন্টিক ব্রাজিলিয়ান কফি, মিডিয়া পার্টনার হিসেবে ছিলো সময় টিভি দ্য ডেইলি স্টার ও দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ড।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button