পজিটিভ বাংলাদেশ

‘মহান আল্লাহ্ ও প্রিয় নবিজী (দ) মহিমান্বিত সাক্ষাৎ মু’মিনদের জন্য মহা আনন্দের’ – সাইয়্যিদ সাইফুদ্দীন আহমদ আল হাসানী

নিজস্ব প্রতিবেদক: মাইজভাণ্ডার দরবার শরীফের সাজ্জাদানশীন, সাইয়্যিদ সাইফুদ্দীন আহমদ আল হাসানী বলেছেন, পবিত্র রজব মাসের ২৭ তারিখ এমনই এক মহিমান্বিত রজনী, যে রজনীতে মহান আল্লাহ্ তা’য়ালা তার প্রিয়তম হাবিব (সা) কে আরশে আজিমে পরম সম্মানিত অতিথি হিসেবে সাদর আমন্ত্রণ জানিয়ে অভ্যর্থনা জানিয়েছেন, সাক্ষাতে ধন্য করেছেন। আমাদের প্রিয় নবিজী (সা), মহান আল্লাহ্ তা’য়ালার এমন নিকটবর্তী হলেন যে, তাদের মাঝে কোন পর্দা বা পার্থক্যই ছিল না। মহান আল্লাহ্, হুযুরপুর নূর আহমদ মুস্তাফা (সা) নিকট সৃষ্টিকুলের সকল রহস্য উম্মোচন করেন। যাত্রাপথে তিনি সম্মানিত নবী, রাসুল (আঃ) গণের সাথেও সাক্ষাত করেন।

পবিত্র শব-ই-মিরাজেই মহানবী (দ) উম্মতের জন্য উপহার হিসেবে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ নিয়ে আসেন। তিনি প্রায় ২৭ বছর সফর করলেন, অথচ পৃথিবীর হিসেবে তা কয়েক সেকেন্ড মাত্র। আধুনিক বিজ্ঞানের আপেক্ষিকতা সূত্রও এ অলৌকিক যাত্রাকে বিজ্ঞানসম্মত বলে স্বীকৃতি দিয়েছে। পবিত্র শব-ই-মিরাজ থেকে আমাদের কাছে একটি বিষয় সুস্পষ্ট হয়ে ওঠে যে, মহামহিম, সর্বশক্তিমান আল্লাহ্ তা’য়ালার মর্যাদার পরেই সর্বোচ্চ সম্মানে যিনি সম্মানিত, যার মর্যাদা বর্ণনার অসাধ্য তিনি হলেন দোজাহানের বাদশাহ্, আমাদের প্রিয় নবিজী (সা)।

সাইয়্যিদ সাইফুদ্দীন আহমদ আল হাসানী মাইজভাণ্ডারী আরো বলেন, মহান আল্লাহ্ ও প্রিয় নবিজী (দ) এর এ মহিমান্বিত সাক্ষাৎ মু’মিনদের জন্য মহা আনন্দের। কারণ তারা বিশ্বাসী এবং মহান আল্লাহ্ ও রাসুলে পাক (দ) এর প্রকৃত প্রেমিক। অপরদিকে পবিত্র কুরআন হাদীসে এ রাত্রির উচ্চ মর্যাদা বর্ণিত হওয়ার পরেও একশ্রেণীর মুনাফিকরা এ তাৎপর্যময় রজনীর মহত্ত্বকে খর্ব করার বৃথা চেষ্টা করছে। আর মুনাফিকদের স্থান জাহান্নামের সর্বনিম্ন স্তরে।

তিনি মুনাফিক চক্রের অপতৎপরতাকে উপেক্ষা করে এ বরকতময় রজনীতে কুরআন তিলাওয়াত, নফল সালাত, তাহাজ্জুদ আদায়, দরুদ-সালাম পাঠ, দান সাদকাহ্, পরদিন নফল রোজা পালনের মাধ্যমে মহান আল্লাহর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানোর জন্য সকলকে আহবান জানান।

২৮শে ফেব্রুয়ারি, বাদ এশা চাঁদপুরের মতলব উত্তরে দুর্গাপুর খলিফা রাজ্জাক শাহ বাড়ির খানকা শরীফ ময়দানে পবিত্র শব-ই-মিরাজ উপলক্ষে আয়োজিত মিলাদ মাহ্ফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মইনীয়া যুব ফোরামের সাংগঠনিক সম্পাদক ও দৈনিক সময়ের আলোর ষ্টাফ রিপোর্টার খলিফা শাহ মোহাম্মদ কামরুজ্জামান হারুন এর সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন মওলানা মূফতি আবদুস সালাম বিপ্লবী,মূফতি খন্দকার মাহবুবুল হক, হাফেজ মোহাম্মদ মনসুর আলী , মাওঃ শাহ মোঃ মমিনুল হক,মাওঃ জোবায়ের আহমেদ। আঞ্জুমান-এ-রাহমানিয়া মইনীয়া মাইজভাণ্ডারীয়ার সম্মানিত খলিফা শাহ মোঃ আব্দুল আউয়াল, শাহ মোঃ আলমগীর হোসেন প্রধান, শাহ্ মোঃ আব্দুর রশিদ মিয়াজী, শাহ মোঃ সিদ্দিকুর রহমান, শাহ্ মোঃ আব্দুল হান্নান,শাহ মোঃ বোরহান উদ্দিন দর্জি, শাহ মোঃ তোফাজ্জল হোসেন, শাহ্ মোঃ আব্দুল মান্নান মাষ্টার, শাহ মোঃ হানিফ মিয়া, শাহ্ মোঃ নুরে আলম সরকার, শাহ মোঃ মহসিন মিয়া, শাহ্ মোঃ ওমর আলী, শাহ মোঃ নজরুল ইসলাম সরকার, শাহ মোঃ হাবিব উল্লাহ,শাহ মোঃ সরাফত আলী,শাহ মোঃ আব্দুল জব্বার, দূর্গাপুর ইউনিয়ন আনঞ্জুমান কমিটির সভাপতি মনির হোসেন মাষ্টার, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মহসিন মিয়া,বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ইসমাইল হোসেন, সমাজ সেবক সাইফুল ইসলাম খোকন,আবু সৈয়দ গোলাম রাব্বানী মামুন, ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার হাসমত আলী,মইনীয়া যুব ফোরামের আইসিটি বিষয়ক সহ-সম্পাদক ইসতিয়াক জামান নাফিজ, দূর্গাপুর ইউনিয়ন মইনীয়া যুব ফোরামের সভাপতি আবুল কাশেম প্রধান , সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম , সাংগঠনিক সম্পাদক ইনছান উল্লাহ প্রমুখ।

হুযুরপুর নূর আহমদ মুজতবা, মুহাম্মদ মুস্তাফা (সা) এর প্রতি দরূদ ও সালাম পেশ শেষে বিশ্ববাসীর কল্যাণ, মুসলিম উম্মাহর একতা, দেশ ও জাতির সমৃদ্ধি কামনায় বিশেষ মুনাজাত পরিচালনা করেন, সাইয়্যিদ সাইফুদ্দীন আহমদ আল হাসানী।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button