দেশজুড়ে

ইউএনও’র প্রচেষ্টায় স্বজনদের ফিরে পেল মানসিক ভারসাম্যহীন কিশোরী

ফারুক হোসেনঃ চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার ষাটনল লঞ্চঘাট থেকে ঈদুল আজহার পরদিন স্থানীয় জনগণের সহযোগিতায় মানসিক ভারসাম্যহীন এক কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়।

মেয়েটিকে উদ্ধারের পর ষাটনল ইউপি চেয়ারম্যান শরীফ উল্লাহ সরকার উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) গাজী শরিফুল হাসানের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে ইউনিয়ন পরিষদে থাকার ব্যবস্থা করা হয়।

শুক্রবার (৩০ জুলাই) বিকেলে স্বজনদের হাতে তুলে দেওয়া হয় ওই মানসিক ভারসাম্যহীন কিশোরীর নূর নাহার (২২) কে । সে নারায়ণগঞ্জের চাষাঢ়া এলাকার তার বাসা।

মেয়েটির পরিবাররর সূত্রে জানা যায়, নিজ বাসা থেকে ঈদের দুদিন আগে মানসিক ভারসাম্যহীন নূর নাহার বাসা থেকে বের হয়ে আসে। তাকে বিভিন্ন স্হানে খোঁজখুজি করে না পেয়ে পরিবারের হতাশ হয়ে পরে। ২৯ জুলাই বৃহস্পতিবার মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বিশেষ বার্তাবাহকের মাধ্যমে নূর নাহারের বাবা মা খুঁজ পায়।

ষাটনল ইউপি চেয়ারম্যান একেএম শরীফ উল্লাহ সরকার জানান, ষাটনল লঞ্চঘাট এলাকায় অজ্ঞাত পরিচয়ের ওই মেয়েটিকে দেখতে পায় স্থানীয়রা। এ সময় তার পরিচয় জিজ্ঞেস করলেও পরিচয় জানা যায়নি। তখন বুঝতে পারেন মেয়েটির স্মৃতিভ্রম হয়েছে। কিংবা মানসিক ভারসাম্যহীনতায় ভুগছে।
জরুরী বৃত্তিতে ইউএনও’র সঙ্গে আলোচনায় মাধ্যমে ইউনিয়ন পরিষদের গ্রামপুলিশের সহায়তায় মেয়েটিকে উদ্ধার করে পরিষের একটি কক্ষে রেখে মেয়েটির সন্ধান চেয়ে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দেন।

মেয়েটির বাবা শাহজাহান জানান বৃহস্পতিবার নারায়ণগঞ্জে কর্মরত সংবাদকর্মী মাধ্যমে জানতে পেরে মতলব উত্তরের ইউএনও’র কাছে যোগাযোগ করা হলে মেয়ে বিষয় নিশ্চিত হই।

শুক্রবার বিকালে আনুষ্ঠানিকতা ভাবে
মানসিক ভারসাম্যহীন নূর নাহারকে
তাদের বাবাসহ স্বজনদের কাছে তুলে দেন মতলব উত্তর ইউএনও গাজী শরিফুল হাসান সহ মতলব উত্তর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ শাহজাহান কামাল, সেনা কর্মকর্তা মোখলেছুর রহমান, ষাটনল ইউপি চেয়ারম্যান একেএম শরীফ উল্লাহ সরকার।

মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) গাজী শরিফুল হাসান জানান, তিনি মানবিক কারণেই মেয়েটিকে উদ্ধার করে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে যান। লঞ্চঘাটে সে খারাপ লোকের খপ্পড়ে পড়লে তার বড় ক্ষতি পারতো। তাই তার স্বজনদের কাছে দূরত্ব হস্তান্তর করার ব্যবস্থা করি।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button